মাস্টার্স নিয়মিত ও প্রাইভেটের পার্থক্যসমূহ Private and Regular 2022

মাস্টার্স নিয়মিত ও প্রাইভেটের পার্থক্যসমূহ Private and Regular 2022 জানতে পারবেন এই পোস্ট থেকে। নিম্নে পর্যায়ক্রমে পার্থক্য সমূহ উল্লেখ করা হলো-

Degree, Honours. Masters বিগত সালের প্রশ্ন ও সমাধান, সাজেশন, নোটিশ পেতে এখানে ক্লিক করে নিয়মিত চেক করুন

মাস্টার্স নিয়মিত মাস্টার্স প্রাইভেট কোর্সের মধ্যে পার্থক্য

  • টার্ম-পেপার, ব্যবহারিক ও মাঠকর্ম আছে এমন বিষয়ে প্রাইভেটের শিক্ষর্থীরা অংশগ্রহন করতে পারবে না বিশেষ করে বিজ্ঞান বিষয়ের শিক্ষার্থীদের মাস্টার্স প্রাইভেট কোর্সে ভর্তির সুযোগ নেই।
  • প্রাইভেট কোর্সের অনুমোদিত বিষয়সমূহ : বাংলা, ইংরেজি, ইতিহাস, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, দর্শন, আরবী, ইসলামিক স্টাডিজ, সংস্কৃত, পালি, অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, হিসাববিজ্ঞান, ব্যবস্থাপনা, মার্কেটিং ও ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং।
  • মাস্টার্স প্রাইভেটের শিক্ষর্থীদের মৌখিক পরিক্ষা ১০০ নম্বরের হয়ে থাকে।
  • মাস্টার্স নিয়মিত শিক্ষার্থীদের মৌখিক পরিক্ষা হবে ৫০ নম্বরের ও টার্ম-পেপার ৫০ নম্বরের
  • মাস্টার্স নিয়মিত ও মাস্টার্স প্রাইভেট উভয় ক্ষেত্রে ইনকোর্স পরিক্ষা দিতে হবে। তবে সব কলেজে নেয়া হয়না।
  • মাস্টার্স নিয়মিত ও মাস্টার্স প্রাইভেট উভয় ক্ষেত্রে ইনকোর্স ২০ নম্বরের এবং লিখিত ৮০ নম্বরের।
  • মাস্টার্স নিয়মিত ও প্রাইভেট মাস্টার্স উভয় ক্ষেত্রে পরিক্ষা ও রেজাল্ট হবে একই পদ্ধতিতে এবং একই সাথে হয়।
  • মাস্টার্স নিয়মিত ও প্রাইভেট মাস্টার্স উভয় কোর্সের মেয়াদ হবে এক (০১) বছর।

আরও পড়ুন: নিয়মিত ও প্রাইভেটের ভর্তির, ফরম ফিলাপ, পরীক্ষার তথ্যসমূহ-ক্লিক করুন

  • নিয়মিত ও প্রাইভেট মাস্টার্স উভয় ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ হবে তিন (০৩) বছর ।
  • মাস্টার্স নিয়মিত ও মাস্টার্স প্রাইভেট উভয় ক্ষেত্রে সার্টিফিকেটের মান সমান। সার্টিফিকেটে লেখা থাকবেনা।
  • মাস্টার্স নিয়মিত কোর্সে ভর্তির জন্য মেধা তালিকায় স্থান পেতে হয় কিন্তু মাস্টার্স প্রাইভেট কোর্সে অনলাইনে আবেদন করে তা অনলানের আবেদন কপিসহ টাকা,ছবি ও সার্টিফিকেট ও মার্কশীট কলেজে জমা দিলেই ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ।
  • প্রাইভেটে ক্লাসের ব্যবস্থা নাই,তাই ক্লাস করতে হয় না। চাকুরিজীবীদেরর জন্য এটাই সবচেয়ে সুবিধাজনক।
  • নিয়মিত/প্রাইভেট উভয়ক্ষেত্রে পরিক্ষার মান/মার্কস ও সমান।
  • নিয়মিত/প্রাইভেট উভয় ক্ষেত্রে পঠিত বিষয়গুলো সমান, শুধু প্রাইভেটে টার্মপেপার থাকেনা কিন্তু উভয় ক্ষেত্রে ভাইভা/মৌখিক পরিক্ষা দিতে হয়।
  • নিয়মিত/প্রাইভেট উভয় ক্ষেত্রে ফরমপূরন, রুটিন,পরিক্ষা ও রেজাল্ট একই সময়ে হয় ৷
  • নিয়মিত প্রোগ্রামে ভর্তির সুযোগ না পেলে প্রাইভেটে সহজেই ভর্তি হতে পারে।
  • প্রাইভেটে ভর্তির জন্য ২.২৫ পয়েন্ট বা ৪৫% নম্বর পেলেই ভর্তি নিশ্চিত হওয়া যায় কিন্তু নিয়মিততে চান্স পেতে হয়, যার পয়েন্ট বেশি সে চান্স পাবে।
  • প্রাইভেট থেকে ডিগ্রী করলে সে আর রেগুলারের মাষ্টার্স করতে পারে না। কিন্তু রেগুলার থেকে প্রাইভেটে যাওয়া যায়।
  • প্রাইভেটের আসন সংখ্যা প্রতি কলেজে প্রতিটি বিষয়ে ১০০০ (এক হাজার) টি।
  • রেগুলারে ভর্তি হতে প্রায় ৩-১০ হাজার টাকার মত লাগে, আর প্রাইভেটে খরচ প্রায় ১১০০-২০০০ টাকা।
  • জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব কলেজে প্রাইভেট প্রোগ্রাম থাকে না।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট: https://www.nu.ac.bd/

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x