এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল MBBS Result 2021

এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল MBBS Result 2021  ৪ এপ্রিল ২০২১ তারিখ প্রকাশ হবে সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেল কলেজে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ এমবিবিএস কোর্সে ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির জন্য ০২-০৪-২০২১ খ্রিষ্টাব্দে লিখিত ভর্তি পরীক্ষা গৃহীত হয়।

Degree, Honours. Masters বিগত সালের প্রশ্ন ও সমাধান, সাজেশন, নোটিশ পেতে এখানে ক্লিক করে নিয়মিত চেক করুন

আগামীকাল রবিবার (৪ এপ্রিল) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। রেজাল্ট তৈরির কাজ চলমান রয়েছে। আগামীকাল যে কোনো সময় এই ফল প্রকাশ করা হবে। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, এবার অধিক সংখ্যক প্রার্থী ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেয়ায় ফল তৈরির কাজে সহায়তা করতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের সিএসই বিভাহের সহায়তা নেয়া হয়েছে। সারাদেশ থেকে পাঠানো শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র স্ক্যানিং করা হয়েছে। সেগুলো ওএমআর মেশিনের মাধ্যমে দেখা হচ্ছে। এটিও শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আজ রাতের মধ্যেই রেজাল্ট প্রস্তুত করে রাখা হবে। রবিবার যেকোনো সময় রেজাল্ট প্রকাশ করা হবে।

এর আগে গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে সারাদেশের ১৯টি কেন্দ্রের ৫৫টি ভেন্যুতে একযোগে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ভর্তি পরীক্ষায় ১ লাখ ১৬ হাজার ৮৫৬ জন প্রার্থী উপস্থিত ছিলেন। যদিও ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছিলেন ১ লাখ ২২ হাজার ৮৭৪ জন।

এদিকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা একাধিক শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, এবার তুলনামূলকভাবে প্রশ্ন কঠিন হয়েছে। ফলে এবার কাট মার্কস (চান্স পাওয়ার সর্ব নিম্ন নম্বর) অনেক কম হবে। যদিও ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের কাট মার্কস ছিল ৬৭। তবে এবার কাট মার্কস ৬০ থেকে ৬৪ এর মধ্যে থাকবে।

বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল কর্তৃক প্রণীত নীতিমালার শর্তানুযায়ী লিখিত পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর ও এসএসসি/সমমান এবং এইচএসসি/সমমান পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ হতে প্রাপ্ত নম্বর যােগ করে অর্জিত স্কোরের ভিত্তিতে (মেধা ও পছন্দ) ৪০৬৮ জন ছাত্র-ছাত্রীকে ৩৬টি সরকারী ও বেসরকারী মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হল।

আসন বন্টন নিম্নরূপ: এমবিবিএস কোর্সে সাধারন আসন ৩৯৬৬টি, মুক্তিযােদ্ধাদের পুত্র-কন্যা এবং পুত্র কন্যাদের পুত্র কন্যার জন্য ৮২টি এবং পশ্চাৎপদ জনগােষ্টির জন্য ২০টি সংরক্ষিতসহ মােট ৪০৬৮টি আসন। একই সংগে মেধা ভিত্তিক ৫০০ (পাঁচশত) জনকে অপেক্ষমান তালিকায় রাখা হয়েছে। আসন শূন্য হলে মেধা ও পছন্দ অনুযায়ী তারা ভর্তির সুযােগ পাবেন। নির্বাচিত ছাত্র-ছাত্রীদের সংশ্লিষ্ট মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষের অফিসে ভর্তির ব্যাপারে যােগাযোগ করার জন্য অনুরােধ করা হচ্ছে।

এমবিবিএস কোর্সে ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল MBBS Result 2021

 

ফলাফল জানতে এখানে ক্লিক করুন

আগামী ——২০21 হতে ——২০21 অফিস চলাকালীন সময় পর্যন্ত কলেজ কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই ভর্তি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। ভর্তিকৃত ছাত্র-ছাত্রীদের নীতিমালা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে তিনবার কেবল মাত্র মাইগ্রেশনের মাধ্যমে অন্য মেডিকেল কলেজে বদলী করা হবে। ফল প্রকাশের পর ——২০21 হতে ——২০21 তারিখের মধ্যে ১০০০/- (একহাজার) টাকা (অফেরতযােগ্য) টেলিটক SMS এর মাধ্যমে জমা দিয়ে স্বীয় পরীক্ষার ফলাফল পূণ:নিরীক্ষার জন্য আবেদন (Submit) করা যাবে।

পূণ:নিরীক্ষার ফলাফল আবেদনকারীকে যথাসময়ে জানানাে হবে। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

ফলাফল পুনঃনিরীক্ষণ পদ্ধতি: টেলিটকের যে কোন প্রিপেইড মােবাইল থেকে SMS করতে হবে।

১ম SMS: DGHS<Space>RSC<Space>Roll No. লিখে পাঠিয়ে দিতে হবে 16222 নম্বরে।

উদাহরণঃ DGHS<>RSC<>119999

ফিরতি Message এ একটি PIN নম্বর আসবে।

২য় SMS: ফি প্রদানের জন্য প্রাপ্ত PIN নম্বর দিয়ে SMS করতে হবে DGHS<>RSC<>YES<>PIN এবং পাঠিয়ে দিতে হবে 16222 নম্বরে ।

উদাহরণঃ DGHS<>RSC<>YES<>3699

ফিরতি SMS-এ ফি জমা বাবদ একটি প্রাপ্তি স্বীকার SMS পাওয়া যাবে।

১০ জানুয়ারী, ২০২০ তারিখ হতে সকল মেডিকেল কলেজে একযােগে ক্লাশ শুরু হবে।

ফলাফল ও ভর্তি সংক্রান্ত তথ্য সংশ্লিষ্ট মেডিকেল কলেজ ও www.dghs.gov.bd ওয়েব সাইট থেকে জানা যাবে। (ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল টেলিটক বাংলাদেশ-এর ওয়েব সাইট http://dghs.teletalk.com.bd থেকেও জানা যাবে।)

ভর্তির সময় নিম্নলিখিত কাগজ পত্র জমা দিতে হবে:

১. এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট।

২. এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষা পাসের সনদপত্র/প্রশংসা পত্র।

৩. জেলা কোটার দাবীর ক্ষেত্রে স্থানীয় সিটি কর্পোরেশনের মেয়র/পৌরসভার চেয়ারম্যান ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান/ওয়ার্ড কমিশনার প্রদত্ত নাগরিক সনদপত্র।

৪. চার কপি সদ্য তােলা পাসপাের্ট সাইজের সত্যায়িত রঙ্গিন ছবি।

৫. পার্বত্য জেলার উপজাতীয় প্রার্থীর ক্ষেত্রে সার্কেল চীফ এবং জেলা প্রশাসকের সনদ ও অ-উপজাতীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে সার্কেল চীফ বা জেলা | প্রশাসক প্রদত্ত সনদপত্র। অন্যান্য জেলার উপজাতীয় প্রার্থীদের ক্ষেত্রে গােত্র প্রধান ও সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক প্রদত্ত সনদপত্র।

৬. মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনের স্বপক্ষে ১৯৯৭-২০০১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের অধীনে তল্কালীন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রতিস্বাক্ষরিত সনদ বা মুক্তিযােদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠনের পর থেকে মাননীয় মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী ও সচিব স্বাক্ষরিত সনদ। মুক্তিযােদ্ধাদের পুত্র-কন্যা এবং পুত্র কন্যাদের পুত্র কন্যার ক্ষেত্রে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের স্বারক নং ০৫.১৭০.০২২.০৭.০১.০১৪, ২০১১-১৮১ তারিখ ০৯ মে ২০১১-এ জারিকৃত বিধি অনুসরন করা হবে।

প্রকাশিত ফলাফলের উপর বিধি সম্মত যে কোন পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও সংযােজনের অধিকার কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটি সংরক্ষণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *