বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি BUET 2021

বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি BUET 2021 প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)।

(পোস্ট আপডেট করা হচ্ছে। কিছুক্ষন পরপর আবার দেখুন প্লিজ)

কোভিড-১৯ সংক্রান্ত বৈশ্বিক মহামারীর কারণে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা স্বাস্থ্য বিধি মেনে প্রাক-নির্বাচনী ও মূল ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে দুই ধাপে অনুষ্ঠিত হবে। এ প্রেক্ষিতে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা চারটি শিফটে গ্রহণ করা হবে। প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় মেধার ভিত্তিতে নির্বাচিত আবেদনকারীদের মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ প্রদান করা হবে।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল, পুরকৌশল, যন্ত্রকৌশল, তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল এবং স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদসমূহের বিভিন্ন বিভাগে স্নাতক শ্রেণিতে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি বাংলাদেশের নাগরিকদের কাছ থেকে নির্ধারিত ফরমে দরখাস্ত আহ্বান করা যাচ্ছে।

যে সকল ছাত্র-ছাত্রী ২০১৭ বা ২০১৮ সালে মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় এবং ২০২০ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষা উত্তীর্ণ হয়েছে, অথবা ২০১৭ সালে মাধমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় এবং ২০১৯ সালে উচ্চ মাধমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় উর্ত্তীর্ণ হয়েছেন কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষার সংশােধিত ফলাফল ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখের পত্রে শিক্ষা বাের্ড থেকে প্রকাশিত হয়েছে, অথবা ২০১৬ সালের নভেম্বর বা তার পরে GCE “O” লেভেল এবং ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে ২০২০ সালের অক্টোবর পর্যন্ত যাঁরা এ GCE “A” লেভেলের পরীক্ষার ফলাফল প্রাপ্ত হয়েছেন, অনান্য শর্তপূরণ সাপেক্ষে শুধুমাত্র তারাই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। যে সকল ছাত্র-ছাত্রী ইতোপূর্বে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন অথবা অংশগ্রহণের যোগ্যতা অর্জন করেছেন তারা এই ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্ৰহণ করতে পারবেন না।

বুয়েট ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যােগ্যতাঃ

(ক) প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড/কারিগরি শিক্ষা বাের্ড থেকে গ্রেড পদ্ধতিতে বিজ্ঞান বিভাগে (গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়নসহ) ৫.০০ এর স্কেলে কমপক্ষে জিপিএ ৪.৫০ পেয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট দাখিল/সমমানের পরীক্ষা পাশ করতে হবে অথবা বিদেশী শিক্ষা বাের্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড পেয়ে পাশ করতে হবে।

প্রার্থীকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বাের্ড থেকে উচ্চ মাধ্যমিক আলীম সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিনটি বিষয়ে রেজিস্ট্রেশনসহ গ্রে্ড পদ্ধতিতে ৫.০০ এর স্কেলে কমপক্ষে জিপিএ ৫.০০ এবং মাধ্যমিক/দাখিল/সমমানের পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিনটি বিষয়ে ৩০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম ২০ নম্বর পেয়ে মাধ্যমিক/দাখিল/সমমানের পরীক্ষায় পাশ করতে হবে অথবা বিদেশী শিক্ষা বাের্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড নম্বর পেয়ে পাশ করতে হবে।

যে সব প্রার্থী ২০১৭ সালে মাধমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় এবং ২০১৯ সালে উচ্চ মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক বা তার সমমানের পরীক্ষায় তাদের সংশােধিত ফলাফল ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ তারিখের পরে শিক্ষা বাের্ড থেকে প্রকাশিত হয়েছে, সেক্ষেত্রে তাদেরকে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বাের্ড মাদ্রাসা শিক্ষা বাের্ড কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন এই তিনটি বিষয়ে ৬০০ নম্বরের মধ্যে ন্যূনতম ৪৮০ নম্বর পেয়ে উচ্চ মাধ্যমিক/আলীম/সমমানের পরীক্ষায় পাশ করাতে হবে অথবা বিদেশী শিক্ষা বাের্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড/ নম্বর পেয়ে পাশ করতে হবে।

সকল সঠিক আবেদনকারীর মধ্য হতে উপরে উল্লেখিত নির্ধারিত নম্বরের ভিত্তিতে বাছাই করে ১ম থেকে ২৪,০০০ তম পর্যন্ত সকল আবেদনকারীকে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা অংশগ্রহণ করতে দেয়া হবে। এই বাছাইয়ের জন্য যথাক্রমে আবেদনকারীর মাধ্যমিক পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয় তিনটিতে প্রাপ্ত মােট নম্বর, গণিতে প্রাপ্ত নম্বর এবং পদার্থ বিজ্ঞানে প্রাপ্ত নম্বরকে অগ্রাধিকারের ক্রম হিসাবে বিবেচনা করা হবে।

(খ) GCE “O” লেভেল এবং GCE “A” লেভেল পাশ করা প্রার্থীদের প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য GCE “O” লেভেল পরীক্ষায় কমপক্ষে পাঁচটি বিষয় (গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন এবং ইংরেজিসহ) এর প্রতিটিতে কমপক্ষে B গ্রেড এবং GCE “A” লেভেল পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিন বিষয়ের বিষয়ের প্রতিটিতে কমপক্ষে A গ্রেড পেয়ে পাশ করতে হবে।

ন্যূনতম যােগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে GCE “O” লেহেল এবং GCE “A” লেভেল পরীক্ষার ফলাফল প্রাপ্ত সকল সঠিক আবেদনকারীকে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযােগ দেয়া হবে।

(গ) ন্যূনতম যােগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে ক্ষুদ্র নৃ-গােষ্ঠীভুক্ত সকল সঠিক আবেদনকারীকে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযােগ দেয়া হবে।

(ঘ) উপরােক্ত শর্তাবলী পূরণ সাপেক্ষে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যােগ্য প্রার্থীদের চারটি শিফটে বিভক্ত করে পরীক্ষা নেয়া হবে। পরিসংখ্যানভিক্তিক পদ্ধতি অনুসরণ করে প্রতিটি শিফটে প্রার্থীদের মেধার বিন্যাসের সমতুল্য নিশ্চিত করা হবে। প্রাক নির্বাচনী পৰ্মীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ বিবেচিত আবেদনকারীদের তালিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নােটিশ বাের্ডে এবং ওয়েবসাইট (www.buet.ac.bd) -এ প্রকাশ করা হবে।

(ঙ) প্রাক-নির্বাচণী পরীক্ষার ফলাফলের মেধাক্রম অনুসারে ১ম থেকে ৬০০০তম (প্রতি শিফটের ১ম থেকে ১৫০০ তম) শিক্ষার্থীকে মডিউল A এবং মডিউল B সহ) মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য নির্বাচিত করা হবে। মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য বিবেচিত আবেদনকারীদের তালিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নােটিশ বাের্ডে এবং ওয়েবসাইট (www.buet.ac.bd) -এ প্রকাশ করা হবে।

বুয়েট ভর্তির আসন সংখ্যাঃ

পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য এলাকার ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীভুক্ত প্রার্থীদের জন্য প্রকৌশল বিভাগসমূহ ও নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মােট ৩টি এবং স্থাপত্য বিভাগে ১টি সংরক্ষিত আসনসহ সর্বমােট আসন সংখ্যা ১২১৫ টি।

বুয়েট ভর্তির আবেদন করার নিয়মঃ

আবেদন করার নিয়ম ভর্তির নির্দেশিকা (Guideline) বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (www.buet.ac.bd)-এ পাওয়া যাবে। ওয়েবসাইটে প্রদত্ত নির্দেশনা মােতাবেক আবেদন ফরম যথাযথ ভাবে পূরণ করে তা অনলাইনে Submit করতে হবে। Submit করা শেষে একটি Application Serial No, প্রদান করা হবে এবং পরবর্তীতে এই নম্বরের বিপরীতে ‘সােনালী ব্যাংক অনলাইন পাের্টাল’, ‘সােনালী ব্যাংক sonali Sheba মােবাইল অ্যাপ’, নগদ, রকেট, NexusPay, বা বিকাশ মােবাইল অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যমে আবেদন ও ভর্তি পরীক্ষা বাবদ প্রদেয় ফি জমা দিতে হবে। অতঃপর আবেদনটি চূড়ান্তভাবে দাখিল (Final submit) করতে হবে। প্রতিটি গ্রুপের জন্য প্রদেয় ফি-এর পরিমাণ নীচের বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হল:

ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য আবেদনের ফরম কেবলমাত্র অনলাইনে পূরণ করা যাবে এবং আবেদন ফি ‘সােনালী ব্যাংক sonali Sheba মােবাইল অ্যাপ’, নগদ, রকেট, NexusPay, বা বিকাশ মােবাইল অনলাইন ব্যাংকিং এর মাধ্যমে প্রদানযোগ্য হবে। আবেদনের ফরম অনলাইনে পূরণ সংক্রান্ত যে কোন সহযােগিতার জন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অফিসের ভর্তি শাখায় শুক্রবার ব্যতীত যে কোন দিন যোগাযোগ করা যাবে।

ভর্তি-সংক্রান্ত পরবর্তী কার্যক্রমের সময়সূী BUET-এর নােটিশ বাের্ডে ও ওয়েবসাইটে যথাসময়ে জানাতে হবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

  • ২৪ এপ্রিল ২০২১, শনিবার, বিকাল ৩.০০ মিনিটের পর অনলাইনে আবেদনপত্র পূরণ আর শুরু করা যাবে না এবং ঐদিনই বিকাল ৫.৩০ মিনিট অনলাইনে আবেদনের সার্ভার বন্ধ হয়ে যাবে। এরপর অনলাইনে আর কোন আবেদনপত্র Submit করা যাবে না।
  • প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় “ক” ও “খ” গ্রুপের জন্য মােট ১০০ নম্বরের MCQ Type পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
  • প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা নেগেটিভ মার্কিং করা হবে এবং প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য প্রাপ্ত নম্বর থেকে প্রশ্নের মানের ২৫% কেটে নেয়া হবে
  • OMR sheet এ শুধুমাত্র কালো কালির বলপয়েন্ট কলমের মাধ্যমে বৃন্য প্লট লা যাবে। জেল পেন, ফাইনে পেন অথবা পেন্সিল ব্যবহার কন্যা। যাবে না।
  • মূল ভর্তি পরীক্ষায় মডিউল A এবং মডিউল B এর প্রতিটি বিষয়ের সকল প্রশ্ন ও মূল্যায়ন প্রচলিত পদ্ধতিতে করা হবে। কোন বিষয়ে MCQ Type প্রশ্ন থাকবে না।
  • বিদ্যমান কেভিড-১৯ মহামারী পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে ৪নং অনুচ্ছেদের ছকে বর্ণিত সময়সুচীর পরিবর্তন হতে পারে। এই বিষয়ে সংশােধনী অথবা প্রয়োজনীয় তথ্যাদি বুয়েটের website এ প্রকাশ করা হবে।

বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি BUET 2021

বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি BUET 2021

বুয়েট ভর্তি বিজ্ঞপ্তি PDF ডাউনলোড

 

Leave a Comment